You are currently viewing স্বাস্থ্যজ্জ্বল ত্বকের জন্য পাঁচটি কার্যকর প্যাক

স্বাস্থ্যজ্জ্বল ত্বকের জন্য পাঁচটি কার্যকর প্যাক

মন ভালো রাখার অন্যতম উপায় হচ্ছে শরীর ভালো রাখা। আর শরীরের অত্যাবশ্যক একটি অঙ্গ হচ্ছে ত্বক। কে না চায় নিজের ত্বককে আরও সুন্দর স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করতে। তাই সুন্দর ও দ্যুতিময় ত্বক পেতে চাইলে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি আমরা মেনে চলতেই পারে।

অ্যালোভেরাঃ

অ্যালোভেরায় রয়েছে ফলিক এসিড ও এমিনো এসিড যা মুখের ব্রণ কমাতে সাহায্য করে। অ্যালোভেরা জেল এর সাথে শসার রস মিশিয়ে .১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি আপনি চাইলে বরফ করেও ব্যবহার করতে পারেন। অ্যালোভেরা ব্যবহারের আগে কেটে কিছুক্ষণ রেখে দিলে দেখা যাবে হলুদ রঙের কস বের হয়, যা ত্বকের জন্য অনেক ক্ষতিকর। এছাড়া অ্যালোভেরা পোড়া ত্বকের মধ্যে ব্যবহার করলে অনেক উপশম পাওয়া যায়। 

কাঁচা হলুদঃ 

ত্বককে ফর্সা করতে চাইলে কাঁচা হলুদের উপকারিতা বহুগুণ। ত্বকে ব্ল্যাকহেডস স্পট থাকলে সেটা দূর করে ত্বককে করে তুলবে উজ্জল। কাঁচা হলুদে ধাকে কারকিউমিন এর এন্টি অক্সিডেন্ট, যা ত্বকে বয়সের ছাপ থেকে বাঁচায়। কাচা হলুদ এর সাথে ২ টেবিল চামচ দুধ ও ১ চা চামচ মধু্র মিশ্রণটি দিয়ে ২০ মিনিট রেখে হালকা হাতে, পানি দিয়ে ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ বার ব্যবহারে পেতে পারেন স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বক। 

চন্দনঃ

সেই প্রাচীন যুগ থেকে ত্বকের পরিচর্যায় চন্দন ব্যবহার হয়ে আসছে। রোদে পোড়া দাগ দূর করতে চন্দন অনেক উপকারী। এছাড়া চন্দনের রয়েছে এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুন, যা ত্বকের বিভিন্ন রকমের সমস্যা দূর করে। চন্দন পাউডার এর সাথে গোলাপজল মিশিয়ে ১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে নিতে পারেন। এতে পেতে পারেন স্বাস্থ্যোজ্জ্বল সুস্থ ত্বক। এই প্যাকটি আপনাকে ব্রণের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করবে। 

মধুঃ

ত্বক সুন্দর রাখতে পাকৃতিক উপাদান গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে মধু। মধু হচ্ছে উচ্চ অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসমৃদ্ধ ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধক এবং রয়েছে কার্যকর নির্যাস যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়। ১ চা চামচ মধুর সাথে এক চা-চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ১৫-২০ মিনিট ঘষুন তারপর কিছুক্ষণ রেখে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি ব্যবহারের ফলে আপনি পেতে পারেন সতেজ ও সুন্দর ত্বক। 

নিম পাতাঃ 

ত্বকের যত্নে নিম পাতার উপকারিতা অতুলনীয়। ব্রণ দূর করে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে নিম পাতার ওষুধ কার্যকর। কয়েকটি নিমপাতা অল্প হলুদ গুঁড়া ও সামান্য তরল দুধ দিয়ে পেস্ট তৈরি করে মেসেজ করুন। ২০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই দিন ব্যবহারের ফলে ব্রণের সমস্যা দূর হবে এবং তৈলাক্ত ভাব কমিয়ে ত্বককে করে তুলবে উজ্জ্বল।

This Post Has One Comment

  1. Farhana Chowdhury

    Thank You!

Leave a Reply